Home 20 পশ্চিমবঙ্গ 20 মুসলিমরা কেন ‘বাড়তি উদ্দীপনা নিয়ে স্বাধীনতা দিবস পালন করছে?

মুসলিমরা কেন ‘বাড়তি উদ্দীপনা নিয়ে স্বাধীনতা দিবস পালন করছে?

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যে মুসলমানদের মধ্যে এবছর বেশী করে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করার প্রবণতা দেথা যাচ্ছে, বলছেন দেশটির মুসলিম সম্প্রদায়ের কয়েকজন নেতা।পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন গতবছর রাজ্যের ১০০টি জায়গায় স্বাধীনতা দিবস পালন করেছিল, কিন্তু এবছর বন্যার কারণে উত্তরবঙ্গের বহু জায়গাতেই তাঁরা অনুষ্ঠান করতে পারছেন না। তবুও এবার প্রায় ১৫০ জায়গায় স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের অনুষ্ঠান করেছে ওই সংগঠনটি।
মুসলমানদের মধ্যে স্বাধীনতা দিবস পালনের এই বর্ধিত উদ্যোগ চোখে পড়েছে পশ্চিমবঙ্গের মুসলিম সমাজের মধ্যে শিক্ষার প্রসার ঘটাতে কাজ করে এমন একটি সংগঠন আল আমিন মিশনের সচিব নুরুল ইসলামেরও।অনেকেই বলছেন, যেভাবে কিছু হিন্দুত্ববাদী সংগঠন মুসলমানদের দেশাত্মবোধ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করছেন, সেই প্রেক্ষিতেই মুসলিমরা এটা প্রমাণ করতে সচেষ্ট যে তাঁরা নিজেদের দেশকে কারও থেকে কম ভালবাসেন না।আজ ভারতে পালিত হয়েছে দেশটির স্বাধীনতা দিবস। দিল্লির লালকেল্লায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একই সঙ্গে গোটা দেশেই রাজ্য সরকার, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন যেমন স্বাধীনতা দিবস পালন করেছেন, তেমনই বহু নাগরিকও নিজেদের বাড়িতে পতাকা উত্তোলন করে পালন করেছেন স্বাধীনতার জয়ন্তী।একইভাবে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের মুসলমান এলাকাগুলোতেও স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের পরিমাণ এবার বেশি করে চোখে পড়ছে।”আসলে মুসলমানরাও যে স্বাধীনতা দিবস পালন করে অন্য সবার মতোই, এটা এতদিন কারও নজরেই পড়ত না। এ বছর সকলে নজর রাখতে গিয়ে দেখছেন মুসলিমরা বেশী সংখ্যায় স্বাধীনতা দিবস পালনে উদ্যোগী হয়েছে,” বলছিলেন মি. ইসলাম।কোথাও পতাকা উত্তোলন, কোথাও দেশাত্মবোধক কনভেনশন – এরকম নানা উদ্যোগ নিয়েছে বিভিন্ন মুসলিম সংগঠন বা মহল্লাগুলি।
কেন এবছর বেশী করে স্বাধীনতা দিবস পালনের এই উদ্যোগ নিচ্ছে মুসলিম সংগঠনগুলি? জানতে চেয়েছিলাম উদার আকাশ পত্রিকার সম্পাদক ফারুক আহমেদের কাছে।তিনি বলছিলেন, “আমরা সেই ১৯৪৭ সাল থেকেই স্বাধীনতা দিবস পালন করছি। এবারে আমরা আরও বেশি করে উদযাপন করে প্রমাণ করতে চাইছি যে আমরাও ভারতীয়, সৌদি আরব বা পাকিস্তান থেকে উড়ে আসি নি।”আমাদের সন্দেহের চোখে দেখো না। আরেকজনের থেকেও মুসলমানরা যে বেশি করে ভারতমাতাকে, ভারতবর্ষকে ভালবাসে , সেটা প্রমাণ করার একটা তাগিদ আমার স্পষ্টতই নজরে পড়ছে”- বলেন তিনি।হিন্দু পুণরুত্থানবাদী সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের দক্ষিণবঙ্গের প্রান্ত প্রচারক জিষ্ণু বসু বলছিলেন, অন্যান্য ধর্মের মানুষের মতোই যে মুসলমানরাও স্বাধীনতা দিবস পালন করবেন – এটাই তো স্বাভাবিক।
“মুসলমান সমাজও একইরকম ভাবে দেশভক্ত। আমি বড় হয়েছি একটা মুসলিম প্রধান এলাকায়। ছোট থেকেই সবাই একসঙ্গেই স্বাধীনতা দিবস পালন করেছি। বিষয়টা হল সাধারণ মুসলমান আর কিছু উগ্র খারিজি মাদ্রাসার মতো সংগঠন – এ দুটো এক নয়। মুসলমান সমাজকে সাধারণ ভারতীয় করে রাখতে চায় না কায়েমী স্বার্থের কিছু রাজনৈতিক দল। তাহলেই তো তাদের ব্লক ভোট পাওয়া যাবে না। সেজন্যই মুসলমান সমাজের প্রতিনিধি হিসাবে কিছু উগ্র মতাদর্শের মুসলমানকে নেতৃত্বে নিয়ে আসে ওই রাজনৈতিক দলগুলোই,” বলছিলেন জিষ্ণু বসু।কিন্তু সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের প্রধান মুহম্মদ কামরুজ্জামান বলছেন, সম্প্রতি অনেকেই মুসলমানদের দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। সেজন্যই এবছর স্বাধীনতা দিবস পালনের বাড়তি উদ্যোগ নিয়েছেন তারা।মি. কামরুজ্জামানের কথায়, “সম্প্রতি মুসলমানদের দেশপ্রেম নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে। এ নিয়ে মুসলমানদের তরুণ প্রজন্মের মধ্যে যাতে এরকম কোনও দ্বিধা না জন্মায় যে তাদের বাধ্য করা হচ্ছে নিজেদের মনে দেশাত্মবোধ জাগিয়ে তোলার জন্য, সেজন্যই আমরা নতুন প্রজন্মের কাছে একটা বার্তা দিতে চেয়েছি। বোঝাতে চেয়েছি আমাদের পূর্বপুরুষদেরও কুরবানি রয়েছে দেশ স্বাধীন করার পেছনে। এই স্বাধীনতা রক্ষা করার দায়িত্ব শুধু সংঘ পরিবারের নয়, মুসলমান সহ প্রত্যেক ভারতবাসীর – এই বার্তা দিতেই আমাদের স্বাধীনতা দিবস পালনের উদ্যোগ।”বিভিন্ন মহল্লায় যখন আজ স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করছিল মুসলিম সংগঠনগুলি, তখনই উত্তরপ্রদেশের কিছু মুসলিম ধর্মীয় নেতা প্রশ্ন তুলেছেন যে কেন কেন্দ্রীয় সরকার নির্দেশিকা জারি করে স্বাধীনতা দিবস পালনে তাদের বাধ্য করবে।

About Dhakar News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

৫ বছরের কারাদণ্ড খালেদা জিয়ার

এতিমদের জন্য পাঠানো ২ কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের মামলায় বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ৫ ...

‘হিন্দুত্বে’র লড়াইয়ে মুসলমানরা কোনঠাসা

ভারতে গুজরাটের আসন্ন নির্বাচনে বিজেপির ‘কট্টর হিন্দুত্ব’ আর কংগ্রেসের এবারকার ‘নরম হিন্দুত্বে’র ঠেলায় রাজ্যের মুসলিম ...

বেনাপোল বন্দর ২৪ ঘণ্টা খোলা : লোকবল সংকটে কার্যক্রম ব্যাহত

দেশের সর্ববৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোল এখন সপ্তাহের সাতদিনই ২৪ ঘণ্টা খোলা। সরকার বেনাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি ...

১০ বছরে গ্যাসের দাম ৩ গুণ বৃদ্ধির আশঙ্কা

আগামী দশ বছরের মধ্যে গ্যাসের দাম তিনগুণ বেড়ে যাবে। বিষয়টি বিবেচনায় রেখে এখন থেকেই প্রাইসিংয়ের ...

বন্যার পানি যেখানে কমেছে-বেড়েছে

দেশের বিভিন্ন নদ-নদীর ৯০টি সমতল স্টেশনের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী ৫১টি পয়েন্টের পানি হ্রাস এবং ৩৬টিতে বৃদ্ধি ...