Home 20 আন্তর্জাতিক 20 অস্ট্রেলিয়ার সিনেট বোরকা পরে মুসলিমদের বিদ্রুপ

অস্ট্রেলিয়ার সিনেট বোরকা পরে মুসলিমদের বিদ্রুপ

অস্ট্রেলিয়ার মুসলিম ও অভিবাসন বিরোধী রাজনীতিবিদ পলিন হ্যানসন বৃহস্পতিবার সিনেটে বোরকা পরে হাজির হয়েছেন। মুসলিমদের বিদ্রুপ করা তার এই কর্মকাণ্ডের জন্য তিনি সিনেটে তিরস্কারের মুখোমুখি হয়েছেন।হ্যানসন বোরকা পরে প্রমাণ করতে চেয়েছিলেন যে এই পোশাক নিরাপত্তার জন্য কতটা ঝুঁকি তৈরি করে। সিনেটে ঢুকে তিনি এই পোশাক খুলে ফেলেন। তার মতে, এই পোশাক জঙ্গিবাদের বিস্তারে ভুমিকা রাখতে পারে। ‘জাতীয় নিরাপত্তার প্রশ্নে বোরকা কি নিষিদ্ধ করা উচিত নয়?’দেশটির অ্যাটর্নি জেনারেল জর্জ ব্র্যান্ডিস তার এই উস্কানিমূলক আচরণের কারণ জানতে চাইলে হ্যানসন এই প্রশ্ন তোলেন। ‘জঙ্গিবাদ এখন আমাদের দেশের জন্য অনেক বড় হুমকি। অনেক নাগরিকই বিষয়টি নিয়ে ভীত-সন্ত্রস্ত,’ যোগ করেন তিনি।দেশটির সর্বোচ্চ আইনজীবী ব্র্যান্ডিস জানান, তার রক্ষণশীল সরকারের এমন কোন পরিকল্পনা নেই। মুসলিম না হয়েও বিদ্রুপ করে বোরকা পরার তার এই আচরণ মুসলিমদের জন্য পীড়াদায়ক বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
‘একটা জনগোষ্ঠীকে বিদ্রুপ করা, তাদের এক ঘরে করে রাখা এবং তাদের পোশাক নিয়ে উপহাস করা খুবই মর্মান্তিক। এই কাজ আপনি কেন করলেন তার জবাব দিতে হবে,’ বলেন ব্র্যান্ডিস।কিছুটা আবেগাপ্লুত হয়ে পড়া ব্র্যান্ডিস এও বলেন যে, ইসলামের কঠোর অনুশাসন যারা মেনে চলেন, তারা দেশের আইনের প্রতিও শ্রদ্ধাশীল। তিনি বলেন, ‘এদেশে প্রায় পাঁচ লাখ মুসলিম অস্ট্রেলিয়ান আছেন। তাদের অধিকাংশই আইন মানেন এবং ভালো নাগরিক।’ব্র্যান্ডিসের বক্তব্যের পর তার লেবার ও সবুজ দলের রাজনৈতিক বিরোধিরাও দাঁড়িয়ে করতালি দেন।এই ঘটনার পর সিনেটের অনেকেই হ্যানসনের প্রতি ক্ষোভ ঝেড়েছেন।তার এই কাজকে ‘বিরক্তিকর’ বলে মন্তব্য করেন স্বতন্ত্র সিনেটর ড্যারিন হিঞ্চ।স্কাই নিউজকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘পলিন হ্যানসন অস্ট্রেলিয়ার একটি জনগোষ্ঠীর ধর্মকেই শুধু উপহাস করেননি, তিনি সিনেটের মতো একটি সম্মানিত প্রতিষ্ঠানেরও উপহাস করেছেন।’লেবার দলের সিনেটর স্যাম দাস্তিয়ারি মনে করেন, সস্তা জনপ্রিয়তা পেতেই হ্যানসন এ কাজ করেছেন।দলে দলে এশিয়ানদের আগমনে অস্ট্রেলিয়া বিপদে পড়ছে, এমন মন্তব্য করে নব্বই দশকের দিকে হ্যানসন প্রথম আলোচনায় আসেন। মাঝে প্রায় এক যুগ রাজনীতির বাইরে থেকে আবার ফেরেন ২০১৪ সালে। মুসলিম বিদ্বেষী হিসেবে পরিচিতিও পান। দু’বছর পর অতি ডানপন্থি দল ওয়ান নেশন পার্টির প্রধান হয়ে সিনেটর নির্বাচিত হন।সিনেটে যোগ দিয়ে প্রথম ভাষণেই তিনি বলেন, ইসলাম এমন একটি সংস্কৃতি ও ধারণা, যা আমাদের নিজস্ব সংস্কৃতির সঙ্গে একেবারেই যায় না।হ্যানসন অবশ্য তার এই কর্মকাণ্ডে মোটেই অনুতপ্ত নন, একটি রেডিওকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘কাজটি কি খুব উগ্র কিছু হয়েছে? হ্যাঁ হয়েছে। আমার মনে হয় পরিষ্কার বার্তাই দিতে পেরেছি।’
সূত্র: ডয়চে ভেলে

About dhaka

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

এক সপ্তাহের মধ্যে বাঁধ মেরামত শুরু হবে: পানিসম্পদমন্ত্রী

পানি সম্পদমন্ত্রী ব্যারিস্টার আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেছেন, কুড়িগ্রামে ভেঙে যাওয়া বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ এক সপ্তাহের ...

বন্দিবিনিময় চুক্তির খসড়া হস্তান্তর

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার অন্যতম আসামি দক্ষিণ আফ্রিকায় পলাতক মাওলানা তাজউদ্দিনকে দেশে ফিরিয়ে আনতে ...

এসকে সিনহা ভগবান থেকে ভূতে পরিণত হয়েছেন: ওমর ফারুক

সাবেক প্রধান বিচারপতি শাহাবুদ্দিন বিচারপতি থেকে রাষ্ট্রপতি হয়ে বঙ্গভবনে বসেই ভগবান থেকে ভূতে পরিণত হয়েছিলেন। ...

মামলা তদন্তে নিরপেক্ষ থাকতে হবে: পুলিশকে আইজিপি

পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টরদের শতভাগ নিরপেক্ষতা বজায় রেখে যে কোন ধরনের প্রলোভন থেকে নিজেদের দূরে রেখে ন্যায়ের ...

গরু চুরির অভিযোগে গণপিটুনি, নিহত ২

গাজীপুরের কাপাসিয়ায় গরু চুরি করে পালানোর অভিযোগে শনিবার বিকালে গণপিটুনিতে দুইজন নিহত ও একজন আহত ...