Home 20 দেশের খবর 20 তুচ্ছ ঘটনায় ২ গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ : পুলিশের গুলি

তুচ্ছ ঘটনায় ২ গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষ : পুলিশের গুলি

নোয়াখালী সেনবাগ উপজেলার ১নং ছাতারপাইয়া ইউনিয়নে ছাতারপাইয়া বাজারে বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে ১২টা পর্যন্ত তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে ছাতারপাইয়া পশ্চিম পাড়া ও সোনাকান্দির দুই গ্রামবাসীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসময় ওই বাজারের ৬/৭টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। পরে খবর পেয়ে সেনবাগ থানা পুলিশ রাত ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌছে ৪৩ রাউন্ড শটগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে উভয় পক্ষের অনন্ত ৩০জন আহত হয়েছে।

আহতদেরকে জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে মামুন, কামরুল, সালাউদ্দিন, জাহাঙ্গীর, নুরনবী’র নাম জানা গেলেও অপর আহতদের নাম ও পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

পুলিশ স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ছাতারপাইয়া ৪নং ওয়ার্ড পশ্চিমপাড়া পল্লীমঙ্গল এলাকা ও ২নং ওয়ার্ড সোনাকান্দি গ্রামের কিশোরদের মধ্যে খাজুরয়িা গ্রামের একটি প্রীতি ক্রিকেট খেলা অনুষ্ঠিত হয় বৃহস্পতিবার। খেলা শেষে সন্ধ্যার দিকে পশ্চিমপাড়া পল্লীমঙ্গল এলাকার চাঁদগাজী মজুমদার বাড়ির কিশোররা বাড়ি ফেরার পথে সোনাকান্দি গ্রামের ওমান প্রবাসী আলী আহম্মদের দৃষ্টিনন্দন বাড়িটির দিকে তাকিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করে।

এ সময় বাড়ির মালিক প্রবাসী আলী আহম্মদ নিজের পরিচয় দিয়ে কয়েকজন ছেলেকে একটি চায়ের দোকানে বসিয়ে রেখে স্থানীয় ৪নং ওয়ার্ড মেম্বার দুলালকে খবর দেয়। পরে দুলাল ঘটনাস্থলে পৌঁছে উভয়কে মিলমিশ করে দিয়ে এলাকায় পাঠিয়ে দেয়।

এরপর রাত ৮টার দিকে তবারত উল্লাহ প্রকাশ তবু, ফয়েজ, শহিদুল, সেলিম ও সোহেলের নেতৃত্বে ছাতারপাইয়া পশ্চিমপাড়া চাঁদগাজী মজুমদার বাড়ির কয়েকশ লোকজন দেশীয় অস্ত্র, লাঠিসোটা নিয়ে বাজারের অবস্থানকারী সোনাকান্দি গ্রামের লোকজনের ওপর হামলা চালায়।

এ খবর দ্রুত ড়িয়ে পড়লে সোনাকান্দি গ্রামের লোকজনও একত্রিত হয়ে পশ্চিমপাড়ার লোকজনকে ধাওয়া করে। এ সময় উভয়ের দুই গ্রামবাসীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় উভয়য়ে একে অপরকে ইটপাটকেল ও কাছের বোতল নিক্ষেপ করে।
এ সময় ছাতারপাইয়া বাজারের মাহি ফামের্সী, নুর ইসলামের মুদি দোকান, হারুনের টাইলস দোকানসহ ৬/৭টি দোকানে লুটপাট হয় বলে বাজার ব্যবসায়ী সমিতি সভাপতি আহাদ মিয়ার অভিযোগ।

পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য লাঠিচার্জ করলে পশ্চিম পাড়ার লোকজন পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এসময় পুলিশ ৪৩ রাউন্ড শটগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এঘটনায় পুলিশ কাউকে গ্রেফতার বা আটক করতে পারেনি পুলিশ। বর্তমানে ছাতারপাইয়া বাজার এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বাজারে পুলিশ টহল দিচ্ছে। বাজারের ব্যবসায়ীদের আশঙ্কা আবারো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে।

আজ শুক্রবার দুপুরে সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুন রশিদ চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চত করে জানান, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

নোয়াখালী সেনবাগ উপজেলার ১নং ছাতারপাইয়া ইউনিয়নে ছাতারপাইয়া বাজারে বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে ১২টা পর্যন্ত তুচ্ছ ঘটনার জের ধরে ছাতারপাইয়া পশ্চিম পাড়া ও সোনাকান্দির দুই গ্রামবাসীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসময় ওই বাজারের ৬/৭টি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। পরে খবর পেয়ে সেনবাগ থানা পুলিশ রাত ১০টার দিকে ঘটনাস্থলে পৌছে ৪৩ রাউন্ড শটগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এতে উভয় পক্ষের অনন্ত ৩০জন আহত হয়েছে। আহতদেরকে জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে মামুন, কামরুল, সালাউদ্দিন, জাহাঙ্গীর, নুরনবী’র নাম জানা গেলেও অপর আহতদের নাম ও পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি। পুলিশ স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ছাতারপাইয়া ৪নং ওয়ার্ড পশ্চিমপাড়া পল্লীমঙ্গল এলাকা ও ২নং ওয়ার্ড সোনাকান্দি গ্রামের কিশোরদের মধ্যে খাজুরয়িা গ্রামের একটি প্রীতি ক্রিকেট খেলা অনুষ্ঠিত হয় বৃহস্পতিবার। খেলা শেষে সন্ধ্যার দিকে পশ্চিমপাড়া পল্লীমঙ্গল এলাকার চাঁদগাজী মজুমদার বাড়ির কিশোররা বাড়ি ফেরার পথে সোনাকান্দি গ্রামের ওমান প্রবাসী আলী আহম্মদের দৃষ্টিনন্দন বাড়িটির দিকে তাকিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করে। এ সময় বাড়ির মালিক প্রবাসী আলী আহম্মদ নিজের পরিচয় দিয়ে কয়েকজন ছেলেকে একটি চায়ের দোকানে বসিয়ে রেখে স্থানীয় ৪নং ওয়ার্ড মেম্বার দুলালকে খবর দেয়। পরে দুলাল ঘটনাস্থলে পৌঁছে উভয়কে মিলমিশ করে দিয়ে এলাকায় পাঠিয়ে দেয়। এরপর রাত ৮টার দিকে তবারত উল্লাহ প্রকাশ তবু, ফয়েজ, শহিদুল, সেলিম ও সোহেলের নেতৃত্বে ছাতারপাইয়া পশ্চিমপাড়া চাঁদগাজী মজুমদার বাড়ির কয়েকশ লোকজন দেশীয় অস্ত্র, লাঠিসোটা নিয়ে বাজারের অবস্থানকারী সোনাকান্দি গ্রামের লোকজনের ওপর হামলা চালায়। এ খবর দ্রুত ড়িয়ে পড়লে সোনাকান্দি গ্রামের লোকজনও একত্রিত হয়ে পশ্চিমপাড়ার লোকজনকে ধাওয়া করে। এ সময় উভয়ের দুই গ্রামবাসীর মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় উভয়য়ে একে অপরকে ইটপাটকেল ও কাছের বোতল নিক্ষেপ করে। এ সময় ছাতারপাইয়া বাজারের মাহি ফামের্সী, নুর ইসলামের মুদি দোকান, হারুনের টাইলস দোকানসহ ৬/৭টি দোকানে লুটপাট হয় বলে বাজার ব্যবসায়ী সমিতি সভাপতি আহাদ মিয়ার অভিযোগ। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য লাঠিচার্জ করলে পশ্চিম পাড়ার লোকজন পুলিশের ওপর চড়াও হয়। এসময় পুলিশ ৪৩ রাউন্ড শটগানের গুলি ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এঘটনায় পুলিশ কাউকে গ্রেফতার বা আটক করতে পারেনি পুলিশ। বর্তমানে ছাতারপাইয়া বাজার এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বাজারে পুলিশ টহল দিচ্ছে। বাজারের ব্যবসায়ীদের আশঙ্কা আবারো সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে। আজ শুক্রবার দুপুরে সেনবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হারুন রশিদ চৌধুরী ঘটনার সত্যতা নিশ্চত করে জানান, পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

About Dhakar News

Leave a Reply

Your email address will not be published.

x

Check Also

ইলিশ আহরণে ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা: মৎসজীবীদের উদ্বেগ

মো: ফিরোজ ফরাজী, রাঙ্গাবালী (পটুয়াখালী): ইলিশ আহরণে সরকারি ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞার মাথায় হাত পড়েছে রাঙ্গাবালীর ...

রাজধানীতে গ্যাস লাইন বিস্ফোরণ: দগ্ধ ৫

রাজধানী ক্যান্টনমেন্ট থানাধীন মানিকদী নামাপাড়া রোডে ওয়াসার কাজ করার সময় তিতাস গ্যাসের লাইন বিস্ফোরণে ৫ ...

দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নেই: ড.আনোয়ার খান এমপি

মোঃ ছায়েদ হোসেন, রামগঞ্জ (লক্ষ্মীপুর): দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বিকল্প নেই ...

নাব্যতা সংকটে দারছিড়া: ভোগান্তিতে এলাকাবাসী

মোঃ ফিরোজ ফরাজী রাঙ্গাবালি (পটুয়াখালী):পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলা। একপাশে বঙ্গপসাগর তিন দিকে নদী। রাঙ্গাবালী উপজেলার কোড়ালিয়া ...

মেঘনায় ট্রলার ডুবির ঘটনায় শিশুসহ ২ জনের লাশ উদ্ধার, নিখোঁজ ৩

মুন্সীগঞ্জ-নারায়ণগঞ্জের সীমান্ত চরকিশোরগঞ্জে মেঘনা নদীতে বাল্কহেডের ধাক্কায় ট্রলারডুবির ঘটনায় এক শিশুসহ দুইজনের লাশ উদ্ধার করা ...