Home 20 জাতীয় 20 আগামী নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোর্টিং মেশিন হচ্ছে না: ইসি

আগামী নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোর্টিং মেশিন হচ্ছে না: ইসি

আগামী জাতীয় নির্বাচনে ভোটগ্রহণে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন বা ইভিএম ব্যবহার হচ্ছে না। আগামী নির্বাচনের যে কর্মপরিকল্পনা বা রোডম্যাপ চূড়ান্ত হয়েছে তাতে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
রবিবার এই কর্মপরিকল্পনা চূড়ান্ত করে নির্বাচন কমিশন। ৭ টি বিষয়কে প্রাধান্য দিয়ে এই পরিকল্পনা অনুমোদন দেয়া হয়েছে।
র‌বিবার বিকেলে আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন ভবনে ইসি সচিব মো. আবদুল্লাহ এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান।
তিনি জানান, ‘কমিশন বৈঠকে রোডম্যাপের যে চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে সেটি বই আকারে আগামী ১৬ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে প্রকাশ করা হবে।’
ইসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, রোডম্যাপে নির্বাচনী আইন ও বিধি সংশোধন, সংসদীয় এলাকার সীমানা পুনঃনির্ধারণ, নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল, সুশীল সমাজ ও গণমাধ্যম ব্যক্তিত্বদের সাথে সংলাপসহ সাতটি বিষয় প্রাধান্য দেয়া হয়েছে। সে অনুযায়ি আগামী ৩১ জুলাই সুশীল সমাজের ব্যক্তিদের সঙ্গে সংলাপে বসবেন ইসি।
সূত্র জানায়, গত ২৩ মে মঙ্গলবার প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা খসড়া রোডম্যাপ ঘোষণা করেন। ওই সময়ে যে সাতটি বিষয় সিইসি উল্লেখ করেছেন সেগুলোকে রোডম্যাপে প্রাধান্য দিয়ে আনুষঙ্গিক বিষয়গুলোতে পরিবর্তন আনা হয়েছে। এসব বিষয় নিয়ে সিইসি ও কমিশনাররা কয়েক দফা বৈঠক করছেন।
ইসির কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে নতুন রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন দেয়া হবে। পাশাপাশি নিবন্ধিত ৪০টি রাজনৈতিক দলের উপর নীরিক্ষা চালানো হবে। আগামী নির্বাচনের আগে নতুন দলের নিবন্ধন দেয়ার পাশাপাশি নিবন্ধিত দলগুলোর বিষয়ে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে নিবন্ধন বহাল বা বাতিলের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। আগামী বছরের মার্চের মধ্যে নতুন দলের নিবন্ধন দেয়া এবং আগে নিবন্ধিত দলগুলো বিধিবিধান অনুযায়ী পরিচালিত হচ্ছে কি না সে অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আগস্ট থেকে কার্যক্রম শুরু করে আগামী বছরের এপ্রিলের মধ্যে নির্বাচনী এলাকার সীমানা চূড়ান্ত করে গেজেট প্রকাশ করা হবে।
ইসির কর্মপরিকল্পনায় জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে ২০১৮ সালের জুনে ভোটকেন্দ্র নির্ধারণের কাজ শুরু হবে। ওই বছরের জুলাই মাসে নির্বাচনী এলাকাভিত্তিক ভোটকেন্দ্রের খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হবে এবং তা স্থানীয় রাজনৈতিক দলের কাছে পাঠানো হবে। একই বছরের আগস্টে খসড়া ভোটকেন্দ্রের উপর দাবি বা আপত্তি গ্রহণ এবং তা নিষ্পত্তি করা হবে। ভোটগ্রহণের ৩৫দিন আগে তা গেজেট আকারে প্রকাশ করা হবে। নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর ওই গেজেট নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে পাঠানো হবে।
জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে আগামী ২৫ জুলাই থেকে শুরু হচ্ছে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটার তালিকা হালনাগাদ কার্যক্রম। আগামী বছরের ৩১ জানুয়ারি এ ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে। এছাড়া আগামী বছরের জুনে ৩শ’ নির্বাচনী এলাকার জন্য ভোটার তালিকা মদ্রণ, ছবিসহ ও ছবিছাড়া ভোটার তালিকার সিডি প্রণয়ন ও বিতরণ করা হবে।
এ ছাড়া রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে আলোচনা করে নির্বাচনী আইন ও বিধিমালায় প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনা হবে।

About Dhakar News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রাজধানীতেও ‘এলএমজি চৌকি’

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃ রাজধানীর মতিঝিল ও ওয়ারী বিভাগের সব থানায় নিরাপত্তা জোরদারের জন্য ‘এলএমজি চৌকি’ ...

খালেদা জিয়া করোনা আক্রান্ত

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃ বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার করোনা শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে ...

১০ দিনব্যাপী চলবে ‘মুজিব চিরন্তন’ ও ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী’র অনুষ্ঠান

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃ১৭ মার্চ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত ১০ দিনব্যাপী চলবে ‘মুজিব চিরন্তন’ ও ‘স্বাধীনতার ...

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ‘অবৈধ সরকারের’ হাতিয়ার – মির্জা ফখরুল

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃবিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন বর্তমান সরকার ‘দখলদার সরকার’। ক্ষমতায় ...

আজ পবিত্র লাইলাতুল মিরাজ

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃআজ ২৬শে রজব, পবিত্র লাইলাতুল মিরাজ। সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশে ...