Home 20 জাতীয় 20 তৈরি পোশাক শিল্পে রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়নি

তৈরি পোশাক শিল্পে রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়নি

রপ্তানি আয় বেড়েছে। তবে, লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়নি তৈরি পোশাক শিল্পে। লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হয়নি মোট রপ্তানি আয়ের ক্ষেত্রেও। এসব তথ্য দেখা যায়, ২০১৬-১৭ অর্থবছরের রপ্তানি আয়ের চিত্রে। অর্থনীতিবিদরা বলছেন, পোশাক খাতের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ না হওয়াতেই, হোঁচট খেয়েছে মোট রপ্তানি আয়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন। তাই, নতুন বাজার তৈরির তাগিদ তাদের। আর বাজারে প্রতিযোগিতায় ঠিকে থাকতে জনবলের দক্ষতা আর সরকারের কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়ানোর দাবি শিল্প মালিকদের।২০১৫-১৬ অর্থবছরে ৩৪ বিলিয়ন ডলারের বেশি রপ্তানি আয়ের পর ২০১৬-১৭ অর্থবছরে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ৩৭ বিলিয়ন ডলার। তবে ১ দশমিক ৬.৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধি নিয়ে শেষ করা গেলো অর্থবছরে আয় হয়েছে ৩৫ বিলিয়ন ডলারের কম।রপ্তানি আয়ের লক্ষ্য পূরণ হয়েছে, প্লাস্টিক, চামড়া, মসলা, চা, সার, প্রকৌশল যন্ত্রপাতি, তুলা ও তুলা জাতীয় পণ্য রপ্তানিতে। তবে, লক্ষ্য পূরণ হয়নি মোট রপ্তানি আয়ের ৮০ ভাগের বেশি যোগান দেয়া তৈরি পোশাক খাতে।

এজন্য, নানা কারণের মধ্যে বিশ্ববাজারে মন্দাভাব ও শ্রমিকদের কর্মদক্ষতার অভাবকে বড় করে দেখছেন শিল্প মালিকরা।বিজিএমইএ সিনিয়র সহ-সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, ‘ইচ্ছা করলেই আমরা দাম বাড়িয়ে দিতে পারবো না। কারণ ইন্টারন্যাশনালে আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বীরা দাম কমিয়ে দিয়েছে। যার ফলে আমাদেরকে প্রোডাক্টিভিটি দিয়ে আমারদের পূরণ করতে হবে।’বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘বিগত দিনে আমরা কোনো গ্যাসের সংযোগ পাইনি। বেক্সিটে পাউন্ডের দরপতন, আমেরিকায় ইলেকশন ইত্যাদি নিয়ে ওয়ার্ল্ড মার্কেটও ঘুরে দাঁড়ায়নি।’
অবস্থার পরিবর্তন ও ২০২১ সাল নাগাদ ৬০ বিলিয়ন ডলারের মোট রপ্তানি আয়ের লক্ষ্য পূরণে নতুন বাজার তৈরিতে তৎপর হওয়ার পরামর্শ অর্থনীতিবিদদের।
সিপিডি গবেষক তৌফিকুল ইসলাম বলেন, ‘অর্থনৈতিক যে কূটনৈতিক আছে সেটিও মনে হয় নতুন ভাবে করতে হবে। শেয়ার বাজার যেভাবে টার্গেট করতে চাই তেমনি দ.আফ্রিকার যে বাজারগুলো আছে সেইদিকে আমাদের ফোকাস করার সুযোগ আছে।’নতুন বাজারে যেতে চান শিল্প মালিকরাও। তবে, এজন্য ব্যবসা বান্ধব উৎপাদন ব্যবস্থা নিশ্চিত করার পাশাপাশি সম্ভাব্য দেশগুলোর সঙ্গে বাণিজ্যিক সম্পর্ক জোরদারে সরকারকে কৌশলী হওয়ার তাগিদ তাদের।বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘এখন রাশিয়া একটি বড় বাজার। রাশিয়ায় ৪০ শতাংশ ডিউটি আছে। আমরা কেন তাদের কাছ থেকে সুবিধা নিচ্ছি না।উৎপাদন ব্যবস্থা শক্তিশালী করতে নিশ্চিত করতে আগামীতে নিরবচ্ছিন্ন জ্বালানি সরবরাহ এলএনজি ব্যবহারের খরচ যেন অতিরিক্ত বেড়ে না যায়, সেদিকেও নজর রাখার পরামর্শ শিল্প সংশ্লিষ্টদের।-সময় টিভি

About Dhakar News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

রাজধানীতেও ‘এলএমজি চৌকি’

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃ রাজধানীর মতিঝিল ও ওয়ারী বিভাগের সব থানায় নিরাপত্তা জোরদারের জন্য ‘এলএমজি চৌকি’ ...

খালেদা জিয়া করোনা আক্রান্ত

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃ বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার করোনা শনাক্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে ...

১০ দিনব্যাপী চলবে ‘মুজিব চিরন্তন’ ও ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী’র অনুষ্ঠান

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃ১৭ মার্চ থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত ১০ দিনব্যাপী চলবে ‘মুজিব চিরন্তন’ ও ‘স্বাধীনতার ...

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ‘অবৈধ সরকারের’ হাতিয়ার – মির্জা ফখরুল

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃবিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন বর্তমান সরকার ‘দখলদার সরকার’। ক্ষমতায় ...

আজ পবিত্র লাইলাতুল মিরাজ

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃআজ ২৬শে রজব, পবিত্র লাইলাতুল মিরাজ। সারাদেশে যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশে ...