Home 20 আন্তর্জাতিক 20 যেভাবে ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মুহাম্মদ’ হয়ে গেল ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা’

যেভাবে ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মুহাম্মদ’ হয়ে গেল ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা’

ভারতের গাড়ি কোম্পানিগুলির মধ্যে এক অতি পরিচিত নাম ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা’।বিশ্বের সব থেকে বড় ট্রাক্টর প্রস্তুতকারক কোম্পানি ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা’। কয়েকশো কোটি ডলার সম্পত্তির অধিকারী এই কোম্পানি।এদের তৈরি ট্রাক্টর ভারতের কৃষকদের কাছে খুবই জনপ্রিয়।কিন্তু জানেন কি এই কোম্পানির নাম এক সময়ে ছিল ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মুহাম্মদ’?আর সেখান থেকে দেশভাগ, ভারত – পাকিস্তানের স্বাধীনতা – এসব কারণে তা আজ হয়ে উঠেছে ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা’।
কোম্পানিটি চালু হয়েছিল ১৯৪৫ সালে।পাঞ্জাবের লুধিয়ানাতে কে.সি মাহিন্দ্রা, জে.সি মাহিন্দ্রা আর মালিক গুলাম মুহাম্মদ ইস্পাত কারখানা হিসেবে এই কোম্পানির পত্তন করেন।’মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা’র চেয়ারম্যান কেশব মাহিন্দ্রা বিবিসিকে বলছিলেন, “কে.সি মাহিন্দ্রা আর জে.সি মাহিন্দ্রা মি: গুলাম মুহাম্মদকে কোম্পানির অংশীদার বানিয়েছিলেন, কারণ তারা হিন্দু-মুসলমান ঐক্যের একটা বার্তা পৌঁছে দেবে সবার কাছে। সংস্থায় মি: মুহাম্মদের অংশীদারিত্ব কমই ছিল, কিন্তু তা স্বত্ত্বেও তাঁর নামটা কোম্পানিতে ব্যবহার করা হয়েছিল।”দেশভাগের একদম ঠিক আগে যখন পাকিস্তানের দাবি ক্রমশ জোরালো হচ্ছে, তখনও গুলাম মুহাম্মদ আর মাহিন্দ্রা পরিবারের মধ্যে বন্ধুত্ব অটুট রয়েছে। ব্যবসাও ভালোই চলছে তখন।১৯৪৭ সালে স্বাধীনতার পরে মালিক গুলাম মুহাম্মদ পাকিস্তানে চলে গেলেন। তিনি সেদেশের প্রথম অর্থমন্ত্রী হয়েছিলেন।দেশ যখন ভাগ হল, তখন ব্যবসাও ভাগ হয়ে গেল।১৯৪৮ সালে ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মুহাম্মদ’ নাম পাল্টে করা হলো ‘মাহিন্দ্রা অ্যান্ড মাহিন্দ্রা’।
গুলাম মুহাম্মদ নিজের অংশীদারিত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন তখন। তবে দুই পরিবারের মধ্যে সম্পর্ক দেশভাগের পরেও অটুট ছিল। শুধু ব্যবসাই আলাদা হয়ে গিয়েছিল।
কেশব মাহিন্দ্রার কথায়, “মালিক গুলাম মুহাম্মদ যখন পাকিস্তানে চলে গেলেন, তখন আমাদের পরিবারের সবাই খুব অবাক হয়েছিলাম। এটাও খারাপ লেগেছিল যে উনি আগে থেকে আমাদের পরিবারকে কিছু জানাননি যে পাকিস্তানে চলে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন তাঁরা।”১৯৫১ সালে মালিক গুলাম মুহাম্মদ পাকিস্তানের গভর্নর জেনারেল হয়েছিলেন। ব্যবসা আলাদা হয়ে গেলেও মাহিন্দ্রা পরিবারের সঙ্গে পুরনো সম্পর্কটা তিনি ভোলেননি।১৯৫৫ সালে দিল্লির রাজপথে প্রজাতন্ত্র দিবসের প্রথম সামরিক প্যারেডে প্রধান অতিথি হয়ে এসেছিলেন।”গুলাম মুহাম্মদ দিল্লিতে এসে প্রথম ফোনটা করেছিলেন আমার ঠাকুমাকে। দুই পরিবারের বন্ধুত্বটা আগের মতোই রয়ে গেছে,” বলছিলেন কেশব মাহিন্দ্রা।

About Dhakar News

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

দুদক মহাপরিচালক মফিজুর রহমান প্রয়াত

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃ দুর্নীতি দমন কমিশনের আইন শাখার মহাপরিচালক মফিজুর রহমান মারা গিয়েছেন। মঙ্গলবার (৯ ...

কলকাতায় ভয়াবহ আগুন, ৪ ফায়ার সার্ভিস কর্মী সহ নিহত ৭

সোমবার বিকেলে কলকাতার স্ট্যান্ড রোডে পূর্ব রেলের দপ্তরে আগুন লাগে। সেই আগুনে এখন পর্যন্ত এএসআই-সহ ...

বিশ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন শুরু এপ্রিলে

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃএপ্রিল মাসের ১ তারিখ থেকে গুচ্ছভুক্ত ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে বিশটি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও ...

বাকপ্রতিবন্ধী নারীকে বাস থেকে ছুড়ে ফেলল হেলপার

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃ ফের ভয়াবহ মানবিক বিকৃতির উদাহরণ দেখল বাংলাদেশ। নারী দিবসের কয়েকঘন্টা আগেই রাজধানীর ...

বিদেশ যেতে পারবেন না খালেদা জিয়া

ঢাকার নিউজ ডেস্কঃবিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সাজা আরও ছয়মাসের জন্য স্থগিত করার সুপারিশ করেছে আইন ...